ছোট-মাঝারি ফ্ল্যাট ও প্লটেই আগ্রহ বেশি [ শেষের পাতা ] 24/12/2016
ছোট-মাঝারি ফ্ল্যাট ও প্লটেই আগ্রহ বেশি
ছুটির দিনে জমে উঠল রিহ্যাব মেলা
আর প্রায় ছয় মাসের মধ্যেই অবসরে যাবেন ব্যাংক কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন। ২৫ বছরের বেশি সময় ধরে একটি সরকারি ব্যাংকে চাকরি করছেন তিনি।

এক ছেলে ও দুই মেয়ের সংসার। থাকেন শ্যামলীতে ভাড়া বাসায়। ছেলে পড়ালেখা শেষে সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। দুই মেয়েরও বিয়ে দিয়েছেন। চাকরি শেষে পরবর্তী জীবনটা নিজের প্লট বা ফ্ল্যাটেই কাটাতে চান সাজ্জাদ হোসেন। অবসরের পর পেনশনের টাকা দিয়ে ফ্ল্যাট কেনার ইচ্ছা নিয়ে গতকাল শুক্রবার ছুটির দিনে এসেছেন রিহ্যাব মেলায়। মেলার স্টলে স্টলে খোঁজখবর নিচ্ছেন তিনি। আলাপচারিতায় সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ছোট্ট কিংবা মাঝারি আকারের ফ্ল্যাট হলেই চলবে। ছেলে ও মেয়েরা নিজ নিজ কাজে ব্যস্ত। বড় বাসার তেমন প্রয়োজন নেই।

রাজধানীর শেরেবাংলানগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চলছে পাঁচ দিনব্যাপী এই রিহ্যাব মেলা। মেলার অন্তত ২০টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছোট ও মাঝারি ফ্ল্যাট এবং প্লটে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের আগ্রহ বেশি। দু-তিন কাঠার প্লট আর এক হাজার থেকে এক হাজার ১০০ বা ২০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাটের চাহিদা বেশি। এককালীন দাম পরিশোধে রয়েছে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ ছাড়। আবার কিস্তিতেও দাম পরিশোধের সুযোগ রয়েছে। তবে দাম এককালীন পরিশোধ করলে দ্রুতই প্লট ও ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

মেলার আয়োজকরা জানান, মধ্যবিত্ত শ্রেণিকে টার্গেট করেই এই মেলার আয়োজন করা হয়। তবে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ছোট, মাঝারির পাশাপাশি বড় প্লট ও ফ্ল্যাট বুকিংয়েরও আয়োজন করে। রিহ্যাবের প্রেস অ্যান্ড মিডিয়ার কো-চেয়ারম্যান কামাল মাহমুদ কালের কণ্ঠকে বলেন, মেলায় মধ্যম আয়ের মানুষের উপস্থিতি বেশি। ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের মধ্যে ছোট ও মাঝারি ফ্ল্যাটের চাহিদা বেশি। মূলত এক হাজার থেকে এক হাজার ২০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাটের আগ্রহ ক্রেতাদের।

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে গতকাল জমে ওঠে রিহ্যাব মেলা। সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলে। আগামীকাল রবিবার পর্যন্ত মেলা চলবে। ওই দিন সরকারি ছুটি হওয়ায় সবচেয়ে জমজমাট মেলার প্রত্যাশা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের।

গতকাল সকালের দিকে মানুষের উপস্থিতি তেমনটা না থাকলেও দুপুরের পর ক্রমেই বেড়েছে। প্রতিটি স্টলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ব্যস্ত সময় পার করেছেন। কোনো বিরতি ছাড়াই মেলায় আগত দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের প্রকল্প সম্পর্কে তথ্য জানানো হয়। নানা রকম ছাড় দিয়ে প্লট কিংবা ফ্ল্যাট বুকিংও নিচ্ছেন। আবার তথ্য দেওয়ার পর বুকিং না দিলে বিস্তারিত তথ্য রেখে দিয়ে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পরে যোগাযোগ করা হবে এমন কথাও জানাচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো। আবার কেউ তথ্য জানিয়ে প্রকল্প দেখে বুকিং নেওয়ার সুযোগ থাকার তথ্যও জানাচ্ছে। চলমান প্রকল্পে কিস্তিতে কিংবা নগদ টাকায় বুকিং নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

এক ছাতার নিচে রাজধানীবাসীকে প্লট ও ফ্ল্যাটের তথ্য দিতে ধারাবাহিকভাবে এই মেলার আয়োজন করে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব)। আবাসন খাতের সবচেয়ে বড় এই আয়োজনে এবার অংশ নিচ্ছে ১৭৫টি রিয়েল এস্টেট ও হাউজিং প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া রয়েছে ৩০টি ভবন নির্মাণকারী ও অর্থলগ্নিকারী প্রতিষ্ঠান।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ইস্ট ওয়েস্ট প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট (প্রাইভেট) লিমিটেড, অ্যাসেট, কনকর্ড, রূপায়ণ, শেলটেক, নাভানা, স্বদেশ প্রপার্টিজ, আনোয়ার ল্যান্ডমার্ক, রাকিন ডেভেলপমেন্ট কম্পানি লিমিটেড ও ন্যাশনাল হাউজিং প্রতিষ্ঠানের স্টলে ভিড় ছিল অনেক বেশি। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের তথ্য জানাচ্ছেন।

ইস্ট ওয়েস্ট প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট (প্রাইভেট) লিমিটেডের মার্কেটিং ও সেলস ডিপার্টমেন্টের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ কে এম হাবিবুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের কেরানীগঞ্জ ও বারিধারার এল ব্লকের প্লটের খোঁজ নিচ্ছে বেশি দর্শক। অনেকে অফিসেও যোগাযোগ করছে। ছুটির দিনে আমরা অনেক সাড়া পেয়েছি। ’

এম এ ওহাব অ্যান্ড সন্স (রিয়েল এস্টেট) লিমিটেডের সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ রাসেল আহমেদ বলেন, ভিড় বাড়ছে। ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা দেখেশুনে প্লট ও ফ্ল্যাট বুকিং দিচ্ছে। সব ধরনের প্লট ও ফ্ল্যাটের চাহিদা রয়েছে। তবে মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ বেশির ভাগই ছোট ও মাঝারি আকারের ফ্ল্যাট খুঁজছে।

সরকারি কর্মকর্তাদের ৫০ হাজার টাকা ছাড় দিচ্ছে স্বদেশ প্রপার্টিজ। এ ছাড়া স্পট বুকিংয়ে রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়। কম্পানিটির সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক নাসরিন আক্তার বলেন, স্বদেশ প্রপার্টিজের প্রতি কাঠা প্লটের দাম স্থানভেদে ১৭ থেকে ৪২ লাখ টাকা।

মেরিন গ্রুপের করপোরেট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক বিপ্লব খান কালের কণ্ঠকে বলেন, মেলায় মানুষের উপস্থিতি অনেক বেশি। বড় প্লটের চেয়ে মাঝারি প্লটের চাহিদা বেশি। সেই অনুযায়ী নানা সুবিধা দিয়ে প্লট বিক্রি করা হচ্ছে।

রিহ্যাবের প্রেস অ্যান্ড মিডিয়ার কো-চেয়ারম্যান কামাল মাহমুদ বলেন, ‘তৃতীয় দিনে (গতকাল) মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড় অন্যবারের আয়োজনকে ছাড়িয়েছে। সব মিলিয়ে ক্রেতা ও দর্শকদের উপস্থিতিতে সফল আমরা। মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বিক্রিও ভালো। ’
 
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Today's Other News
More
Related Stories
News Source Link
            Top
            Top
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters