ব্যাংকিং সেবা আরো বিস্তৃত করতে হবে: অর্থমন্ত্রী [ খবর ] 21/03/2017
মেঘনা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং উদ্বোধন
ব্যাংকিং সেবা আরো বিস্তৃত করতে হবে: অর্থমন্ত্রী
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, দেশে যথেষ্টসংখ্যক ব্যাংক আছে। সরকারি-বেসরকারি মিলে ৫৭টি ব্যাংক হয়ে গেছে। ব্যাংকের শাখা সে রকম বেশি হয়নি। নয় হাজারের কিছু বেশি ব্যাংক শাখা হয়েছে। আমাদের দেশে ৫৪ হাজার মৌজা আছে। সে তুলনায় ব্যাংক শাখার সংখ্যা খুবই কম। এজন্য ব্যাংকিং সেবা আরো বিস্তৃত করতে হবে।

চতুর্থ প্রজন্মের মেঘনা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গতকাল সন্ধ্যায় ‘মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ অ্যান্ড পে’ নামের নতুন মোবাইল ব্যাংকিং সেবা উদ্বোধন করা হয়। মেঘনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, মেঘনা ব্যাংকের চেয়ারম্যান এইচএন আশেকুর রহমান, মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশ লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. মো. জহির উদ্দিন, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. কামরুল আহসান, মোবিলিটি মালয়েশিয়ার সিইও দাতো হুসাইন এ রহমান প্রমুখ।

অর্থমন্ত্রী তার বক্তৃতায় বলেন, দেশে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ব্যাপক ও বিস্তৃত। এ সেবার মাধ্যমে মাসে ২৫ হাজার কোটি টাকার মতো লেনদেন হয়। তবে এটি খুব বেশি নয়। বর্তমানে ১০-১২টি ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় সজাগ আছে। এক্ষেত্রে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার উদ্যোগ গ্রহণ করে মেঘনা ব্যাংক একটি ভালো কাজ করেছে।

অনুষ্ঠানে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের হাতে ১৩ কোটি সেলফোন রয়েছে। এসব ফোন ব্যবহার করে মেঘনা ব্যাংক জনগণের হাতের মুঠোয় টাকা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। এটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। প্রতি বছর বাজেটের অর্থ থেকে ৬৪-৬৫ হাজার কোটি টাকা সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় কোটি কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়। বড় অংকের এ অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রে সময় নষ্ট হয়। এক্ষেত্রে দুর্নীতি ও হয়রানির অভিযোগও আছে। এ অর্থ সুবিধাভোগীদের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য মোবাইল ব্যাংকিং কার্যকর পন্থা হতে পারে। এর মধ্যেমে সময় যেমন বাঁচবে, একই সঙ্গে দুর্নীতি ও হয়রানিও বন্ধ হবে।

মেঘনা ব্যাংকের চেয়ারম্যান এইচএন আশেকুর রহমান বলেন, ব্যাংক কোনো পারিবারিক ব্যবসা নয়। জনগণকে সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে মেঘনা ব্যাংকের জন্ম। বিগত সময়ে যথার্থ সেবা প্রদানের মাধ্যমে জনগণের ভালোবাসা অর্জনে আমরা সফল হয়েছি।

মেঘনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল আমিন বলেন, যেভাবে ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাস্তবায়ন করা হয়েছে, অচিরেই সেভাবে মোবাইল ব্যাংকিং সুইচের প্রয়োজন হতে পারে।

মেঘনা ব্যাংক ও মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশ লিমিটেড যৌথভাবে এ সেবা চালু করেছে। এ সেবার মাধ্যমে ব্যাংকিং ব্যবস্থার বাইরে থাকা বিশাল জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকের কোনো শাখা ছাড়াই স্বল্প খরচে ব্যাংকিং সেবা দিতে সক্ষম হবে। এ সেবার মাধ্যমে গ্রাহকরা টাকা সঞ্চয়, টাকা প্রদান ও গ্রহণ, মোবাইলে টাকা রিচার্জ, বিভিন্ন বিল পরিশোধ থেকে শুরু করে দৈনন্দিন জীবনের কেনাকাটা সহজ ও দ্রুততার সঙ্গে করতে পারবেন।
 
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Today's Other News
• ফেডারেলের বিরুদ্ধে মামলার কথা ভাবছে সরকার: অর্থমন্ত্রী
• রিজার্ভের অর্থ ফিরে পেতে আশাবাদী অর্থমন্ত্রী
• বিবি প্রধান অর্থনীতিবিদ হলেন ফয়সাল আহমেদ
• বড় খেলাপিরা সুবিধা নিয়েও ঋণ পরিশোধ করছে না
• সিটি ব্যাংকের অংশীদার হলো আইএফসি
• বাংলাদেশ ব্যাংকে আগুন জনমনে প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে
• বড় শিল্পে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৪১ শতাংশ
• রিজার্ভ চুরির অর্থ ফেরত পেতে আইনি প্রক্রিয়া জোরদার করবে সরকার
• অনলাইন হওয়ার সঙ্গে ঝুঁকি বেড়েছে
• রূপালী ব্যাংকের সব শাখা এখন অনলাইনে
More
Related Stories
News Source Link
            Top
            Top
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters