Hawker.com.bd     SINCE
 
 
 
 
বাড়ছে না হজের কোটা [ প্রথম পাতা ] 20/04/2017
বাড়ছে না হজের কোটা
অনিশ্চয়তা সরিয়ে নিবন্ধন শুরু
বাংলাদেশে হজ পালনকারী ধর্মপ্রাণ মুসলি্লর সংখ্যা দিন দিন বাড়ায় সম্প্রতি ঢাকা সফররত সৌদি প্রতিনিধিদলের কাছে নির্ধারিত কোটার পরিধি বাড়তে মৌখিক প্রস্তাব দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। পাশাপাশি এ ব্যাপারে সৌদি সরকারের কাছে লিখিত আবেদনও করা হয়। তবে এ ব্যাপারে এখনো কোনো ইতিবাচক সাড়া পায়নি ধর্ম মন্ত্রণালয়।
এদিকে হজের কোটা বৃদ্ধি ও নির্ধারণ নিয়ে হজ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মধ্যে দীর্ঘ টানাপড়েনের পর মঙ্গলবার থেকে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ফলে বিপুলসংখ্যক মুসলি্লর হজে যাওয়া নিয়ে যে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছিল, তা কেটে গেছে। তবে নিবন্ধন শেষে এ নিয়ে আবার ২৩ এপ্রিল মন্ত্রণালয় ও হাবের বৈঠক হতে পারে বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুল জলিল যায়যায়দিনকে বলেন, নিবন্ধনের জন্য শুধু সময় বাড়ানো হয়েছে; এর বেশি কিছুই হয়নি। বাকি সব কিছুই নীতিমালা অনুযায়ী হবে। কোটা বাড়ানোর বিষয়ে সচিব বলেন, এ বিষয়ে তার কিছুই জানা নেই। এ নিয়ে কোনো কিছুই বলাও যাবে না। কারণ, বাড়ানোর বিষয়ে তাদের কোনো ক্ষমতা নেই, এটা সৌদি আরবের বিষয়।
মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, হাব যে কারণে হজযাত্রীদের নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রেখেছিল, সে বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্নভাবে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। তবে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। শুধু বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে আগামী ২৩ তারিখ পর্যন্ত নিবন্ধন করা যাবে। কারণ, দুই দফা নিবন্ধনের সময় বাড়ানোর পর মন্ত্রণালয় থেকে আর সময় বাড়ানো হচ্ছিল না। তাই হাব সময় বাড়ানোর আবেদন করেছিল। তাদের আবেদন বিবেচনা করে সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে। এ ছাড়া এবার হজের কোটা বাড়ানোর বিষয়ে সৌদি সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে। সম্প্রতি ঢাকায় সফররত সৌদি প্রতিনিধিদলের কাছেও এ বিষয়ে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তারা তাদের কর্তৃর্পক্ষের কাছে বিষয়টি তুলে ধরবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন। তবে কোটা বাড়ানোর বিষয়ে এখনো কিছু জানে না মন্ত্রণালয়। বর্তমানে যে কোটা আছে, সেটা পূরণ করে কার্যক্রম শেষ করা মন্ত্রণালয়ের এখন মূল কাজ বলে মনে করছেন কর্মকর্তারা। ফলে কোটা বাড়ানোর বিষয়ে মানুষকে আশা দেয়া ঠিক হবে না। কারণ, আশা দিয়ে পাওয়া না গেলে পরে বিপদে পড়তে হবে। এ বিষয়ে যদি কেউ মানুষকে আশা দেয়, সেটা তাদের ব্যবসায়ী কৌশল। এ নিয়ে কোনো এজেন্সি মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেবে মন্ত্রণালয়। হজচুক্তি অনুযায়ী এবার সরকারি ১০ হাজার ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ১৭ হাজার ১৯৮ জনসহ মোট এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জনের কোটা বরাদ্দ রয়েছে। ইতোমধ্যে প্রায় দুই লাখ মুসলি্ল প্রাক নিবন্ধন করেছেন।
হজ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিম বাহার যায়যায়দিনকে বলেন, হজ নিবন্ধন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার বিষয়ে ধর্মমন্ত্রী, ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ১৭ এপ্রিলের আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার স্বার্থে হজ এজেন্সিগুলো মঙ্গলবার থেকে নিবন্ধন শুরু করেছে। এ ছাড়া হাবের যে দাবি আছে, সে বিষয়ে ২৩ এপ্রিল সিদ্ধান্ত দেবে মন্ত্রণালয়। তারা দাবিগুলো উপস্থাপন করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে, নতুন কোটা নির্ধারণের বিষয়। ১৫০ জন হজযাত্রী-সংবলিত এজেন্সিগুলোর হজযাত্রী নিবন্ধন নিশ্চিত করা। এ ছাড়া গত বছরের প্রাক-নিবন্ধনকৃত ৩৭ হাজার হজযাত্রীর নিবন্ধন যাচাই-বাছাই করে নিশ্চিত করে সরকারি কোটার সাড়ে ছয় হাজার বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেয়া। কারণ, যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের বিষয়েও চিন্তা করতে হবে। হাব সভাপতি বলেন, আশা করেন দাবিগুলো মেনে নেবে মন্ত্রণালয়। এতে নেতিবাচক কিছু মনে করছেন না।
হজ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ যায়যায়দিনকে বলেন, এ বিষয়ে ২৩ এপ্রিল চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আপাতত নিবন্ধন চলবে। তবে এজিএমের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন তারা। কারণ প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে ৫০ হাজার কোটা বৃদ্ধির জন্য সৌদি সরকারের কাছে দাবি আছে।
এ ছাড়া বেসরকারি হজ এজেন্সিগুলোর অভিযোগ, গত ফেব্রুয়ারি মাসে হজের প্রাক-নিবন্ধনের সময় কোনো কোনো এজেন্সি একটিও রেজিস্ট্রেশন করতে পারেনি। আবার অনেক এজেন্সি কয়েক শ হজযাত্রীর নাম নিবন্ধন করেছে। এ অবস্থায় শতাধিক এজেন্সি এ বছরের কোটাপ্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছে। বঞ্চিত এজেন্সিগুলোকে সমহারে কোটা বণ্টনের দাবি হাব নেতাদের।
News Source
 
 
 
 
Today's Other News
More
Related Stories
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
 
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters