দেশে ৩০টির বেশি কম্পিউটারে সাইবার হামলা [ শেষের পাতা ] 16/05/2017
দেশে ৩০টির বেশি কম্পিউটারে সাইবার হামলা
বাংলাদেশে ব্যক্তিগত কম্পিউটার সাইবার হামলার শিকার হয়েছে। র‌্যানসমওয়্যার নামের ওই ম্যালওয়ারের হামলার শিকার হওয়া কম্পিউটারের মালিকরাই সাইবার বিশেষজ্ঞদের এ তথ্য জানিয়েছেন। সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান ক্রাইম রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত ঢাকা ও চট্টগ্রামে ৩০টিরও বেশি কম্পিউটার এ ধরনের হামলার শিকার হয়েছে। সাইবার সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান ই-জেনারেশন লিমিটেডের সাইবার স্পেশালিস্ট তামজীদ রহমান বলেন, ‘ব্যক্তিগত কম্পিউটারে র‌্যানসমওয়্যার ভাইরাসের শিকার হওয়া ব্যক্তিরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তবে এখনও বড় ধরনের নেটওয়ার্কে হামলার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।’

সরকারি কোনো প্রতিষ্ঠানে র‌্যানসমওয়্যার হামলার খবর পাওয়া যায়নি বলে নিশ্চিত করেছেন সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোঃ আবু নাছের। তিনি বলেন, বাংলাদেশে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে ডাটা সেন্টার নিরাপদ রয়েছে। র‌্যানসমওয়্যারের হামলা থেকে নিরাপদ থাকার জন্য করণীয় সম্পর্কে সাইবার বিশেষজ্ঞ তামজীদ রহমান বলেন, ‘এ ধরনের ভাইরাস আক্রমণের পর তথ্য জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা করে থাকে। তাই কম্পিউটারের জরুরি ও প্রয়োজনীয় সব ডাটার ব্যাকআপ রাখা উচিত। এছাড়া স্প্যাম মেইল বা সন্দেহজনক মেইল খোলা ও ডাউনলোড করা থেকেও বিরত থাকতে হবে।’ প্রসঙ্গত, শুক্রবার থেকে একযোগে বিশ্বের দেড়শ’ দেশে সাইবার হামলা হয়।

এশিয়া-ইউরোপে আরও সাইবার হামলা : নজিরবিহীন সাইবার হামলার শিকার দেশের সংখ্যা বেড়ে ১৫০-এ পৌঁছেছে। সোমবার নতুন করে এশিয়া ও ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ সাইবার হামলার

শিকার হয়। শুক্রবার থেকে ‘ওয়ান্নাক্রাই’ নামের একটি র‌্যানসওয়্যারের মাধ্যমে বিশ্বের কয়েক লাখ কম্পিউটার আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে চীনের ২৯ হাজারের বেশি প্রতিষ্ঠান এ হামলার শিকার হয়েছে। সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট এটা সতর্কবার্তা হিসেবে নিতে বলেছে। বিবিসি এ খবর জানায়।
বাংলাদেশেও কয়েকটি কম্পিউটার সাইবার হামলার শিকার হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বিভিন্ন কম্পিউটারে র‌্যানসওয়্যার স্থাপনের মাধ্যমে হ্যাকাররা নির্দিষ্ট অঙ্কের অর্থ দাবি করছে। যেসব কম্পিউটার অচল হয়েছে, সেগুলো সক্রিয় করার অর্থ তিন দিনের মধ্যে দেয়ার দাবি জানাচ্ছে হ্যাকাররা। এ অর্থ না দিলে ফাইল ডিলিট করে দেয়ারও হুমকি দিচ্ছে। বিশ্বের যেসব গুরুত্বপূর্ণ কোম্পানির কম্পিউটার এ হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে জার্মানির রেল যোগাযোগ নেটওয়ার্ক, স্পেনের টেলিযোগাযোগ অপারেটর টেলিফোনিকা ও যুক্তরাষ্ট্রের পরিবহন সংস্থা ফেডেক্স। রাশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১ হাজারের বেশি কম্পিউটার এ হামলার শিকার হয়েছে।
সাইবার হামলা থেকে রক্ষা পেতে যা করবেন : ইউরোপের নিরাপত্তা সংস্থা ইউরোপোল বলছে, বিশ্বব্যাপী হ্যাকাররা যে সাইবার হামলা চালিয়েছে, তাতে ১৫০ দেশের ২ লাখ কম্পিউটার আক্রান্ত হয়েছে। আরও আক্রমণের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। বাংলাদেশেরও বেশ কিছু ব্যক্তি ও বড় প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার এ হামলার শিকার হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে।
কীভাবে এ হামলা ঠেকানো যায়? এ প্রসঙ্গে বিবিসির ক্রিস ফক্স বলছেন, সাধারণ কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা তিনটি জিনিস করতে পারেন। প্রথমত, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, আইপ্যাড, ট্যাবলেট বা মোবাইল ফোনে এর প্রস্তুতকারকরা যেসব সফটওয়্যার আপডেট করতে বলে, তা করে ফেলুন। দ্বিতীয়ত, অপ্রত্যাশিত কোনো ই-মেইল খুলবেন না, কোন অ্যাটাচমেন্ট ডাউনলোড করবেন না। কোনো অচেনা লিংকের ওপর ক্লিক করবেন না। তৃতীয়ত, কম্পিউটার পুরনো অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে না চালানোটা অপেক্ষাকৃত কম ঝুঁকির।
 
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Today's Other News
• বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে ওয়াও সান-ই এলইডির কার্যক্রম শুরু
• দেশে চালু হলো সবচেয়ে বড় ভার্চুয়াল এসডিএম প্রযুক্তি
More
Related Stories
News Source Link
            Top
            Top
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters