সঞ্চয়পত্র ব্যবস্থায় সংস্কারের পরামর্শ [ অর্থনীতি ] 14/09/2017
বিআইবিএমের কর্মশালা
সঞ্চয়পত্র ব্যবস্থায় সংস্কারের পরামর্শ
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেছেন, সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের অনেক বেশি অর্থ নেওয়ার প্রবণতা অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। এ জন্য সঞ্চয়পত্র ব্যবস্থায় সংস্কার আনা প্রয়োজন। তবে এটাও বিবেচনায় রাখতে হবে, সঞ্চয়পত্রের ওপর অনেক মানুষ নির্ভরশীল।

রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) মিলনায়তনে মুদ্রানীতি (জুলাই-ডিসেম্বর) শীর্ষক এক কর্মশালায় গতকাল বুধবার ইব্রাহিম খালেদ এসব কথা বলেন।

কর্মশালায় ঘোষিত মুদ্রানীতি বিষয়ে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ ফয়সাল আহমেদ। বিআইবিএমের মহাপরিচালক তৌফিক আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ কর্মশালায় সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। স্বাগত বক্তব্য দেন বিআইবিএমের পরিচালক শাহ মো. আহসান হাবীব।

সঞ্চয়পত্রের বিষয়ে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেন, গরিব ও মধ্যবিত্তদের জন্য আলাদা সেভিংস সার্টিফিকেট চালু করতে হবে। এতে সুদ হার তুলনামূলক একটু বেশি রাখা যেতে পারে। অপর দিকে সেভিংস বন্ড হবে ধনীদের জন্য, এর সুদ হার হবে ব্যাংকের সুদ হারের মতো।

সাবেক ডেপুটি গভর্নর ইব্রাহিম খালেদ আরও বলেন, প্রবৃদ্ধি শুধু অর্থ সরবরাহের ওপর নির্ভর করে না। বিনিয়োগকারীরা গ্যাস-বিদ্যুৎ পেলে আরও বেশি বিনিয়োগ হবে, এ ক্ষেত্রে মুদ্রানীতির কোনো সম্পৃক্ততা নেই।
অনুষ্ঠানে বলা হয়, নতুন মুদ্রানীতির (জুলাই-ডিসেম্বর) কারণে বেসরকারি খাতে বড় অঙ্কের ঋণ পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখ্য অর্থনীতিবিদ ফয়সাল আহমেদ বলেন, উচ্চ প্রবৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে। বেসরকারি খাত বিনিয়োগের জন্য পর্যাপ্ত অর্থ পাবে।
 
 
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Forward to Friend Print Close Add to Archive Personal Archive  
Today's Other News
• বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে ২৪৫ শতাংশ
More
Related Stories
News Source Link
            Top
            Top
 
Home / About Us / Benifits / Invite a Friend / Policy
Copyright © Hawker 2013-2012, Allright Reserved
free counters