[ ] 02/03/2017
 
খেলতে পারবেন না মেসি-নেইমার!
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন ঘটল বার্সেলোনার। ৪-০ গোলে প্রথম লেগে বিধ্বস্ত হলেও ন্যু ক্যাম্পে প্যারিস সেন্ট জার্মেইনের (পিএসজি) সঙ্গে অসাধারণ জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে চলে গেল কাতালানরা। এরপর সেমি-ফাইনালের বাধা টপকে ফাইনালেও উঠল কোচ লুইস এনরিকের দল!

উপরের বক্তব্যটি কাল্পনিক। কিন্তু যদি এমন হয়, তারপরও ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চের ফাইনালে নাও দেখা যেতে পারে লিওনেল মেসি ও নেইমারকে!

না! ইনজুরি কিংবা মাঠের কোনো কারণে নয়। আর্জেন্টাইন ও ব্রাজিলিয়ান তারকাকে ফাইনাল খেলতে নাও দেখা যেতে পারে আইনি জটিলতায়। এমন শঙ্কার কথাই জানিয়েছেন ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফার সভাপতি আলেকসান্দ্রার শেফেরিন।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের চলতি আসরের ফাইনাল হবে যুক্তরাজ্যের কার্ডিফে। মেসি-নেইমারের বিরুদ্ধে স্পেনে কর ফাঁকির মামলা চলমান। তাই তাদের যুক্তরাজ্যে প্রবেশে বাধা আসতে পারে। শেফেরিন বলেন, ‘নেইমার ও মেসি-দু’জনের বিরুদ্ধেই কর ফাঁকির মামলা চলছে। এই বছর চ্যাম্পিয়ন লিগের ফাইনাল হবে কার্ডিফে। একবার চিন্তা করুন, তাদের যদি ঢুকতে না দেওয়া হয়।’

২০১৩ সালে মেসির বিরুদ্ধে কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়। ২০০৭-০৯ সালে উরুগুয়ে এবং বেলিজে অফশোর কোম্পানি ব্যবহার করে আর্জেন্টাইন তারকা প্রায় ৪০ লাখ ইউরো কর ফাঁকি দিয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে অভিযোগ করা হয়। পরে ২০১৬ সালের ৬ জুলাই মেসি এবং তার বাবাকে দোষী সাব্যস্ত করে ২১ মাসের স্থগিত কারাদণ্ডাদেশসহ জরিমানা করা হয়। অন্যদিকে সান্তোস থেকে বার্সেলোনায় আসার ট্রান্সফার বিষয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত না করার জের ধরে এক পর্যায়ে কর ফাঁকির অভিযোগ আনা হয় নেইমারের বিরুদ্ধেও। দু’জনের বিরুদ্ধেই এখন আইনি প্রক্রিয়া চলমান। গত বছরের সেপ্টেম্বরে পুলিশকে আঘাতের অভিযোগে দুই মাসের জেল দেওয়া হয়েছিল পিএসজির আইভোরিয়ান ডিফেন্ডার সার্জি অরিয়ারকে। শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল প্রক্রিয়া চলাকালীন তাকে আর্সেনালের সঙ্গে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচ খেলার জন্য ভিসা দিতে অস্বীকৃতি জানায় যুক্তরাজ্য কর্তৃপক্ষ।

এই ঘটনার উল্লেখ করে শেফেরিন বলেন, ‘অরিয়ারকে যখন ইংল্যান্ডে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি, তখন আমি খুবই হতাশ হয়েছিলাম। যদি আমরা দেখি খেলোয়াড়রা এমন আইনি জটিলতার কারণে কোনো দেশে ঢুকতে পারছে না, তখন আমরা সেখানে ইউরোপিয়ান আসরগুলো আয়োজনের আগে দ্বিতীয়বার ভেবে দেখব।’

ব্রেক্সিটের কারণে এমন আইনি জটিলতা আরো বাড়তে পারে বলে মনে করেন উয়েফা সভাপতি।-মার্কা